ইন্ডিয়া নয়, দেশের নাম ভারত রাখার দাবি কঙ্কনার

বিনোদন

বরাবরই তিনি বিতর্কিত মন্তব্যে আলোচনা ও সমালোচনার মধ্যমণি হয়েছেন। এবারেও সেই ধারা থেকে সরলেন না তিনি। এবারে দেশের নাম ইন্ডিয়া নয়, রাখা হোক শুধুমাত্র ভারত; এমন দাবি তুলে দিলেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্কনা রানাওয়েত।

তিনি দাবি করেছেন, ইন্ডিয়া হচ্ছে ব্রিটিশদের দেওয়া স্লেভ নেম। যা ততকালীন ইংরেজ শাসকদের ক্রীতদাসের নামকরণ। ফলে ইন্ডিয়া নামে কোনও গৌরব নেই বলেই মনে করেন কঙ্কনা।

বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে কঙ্কনা বলেছেন, ভারতের উত্থান তখনই সম্ভব হবে, যখন ভারতের মূল শেকড়ের সঙ্গে প্রাচীন আধ্যাত্মবাদ এবং জ্ঞানের যোগসুত্র থাকবে। যেটা ভারতের মহান সভ্যতার আত্মা। সেই ভাবধারাকে যখনই তুলে ধরা যাবে, তখনই গোটা বিশ্ব আমাদের দিকে উঁচু নজরে তাকাবে এবং আমরা বিশ্বনেতা হিসাবে উঠে আসতে পারবো। তবে সেক্ষেত্রে আমাদের নগরকেন্দ্রিক সভ্যতার উন্নতি ঘটাতে হবে। তবে সেই নগরকেন্দ্রিক সভ্যতা যাতে পশ্চিমি দুনিয়ার অনুকরণে না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

কঙ্কনা দাবি করেন, ভারতের আদি শেকড়ের সঙ্গে বিভিন্নভাবে জড়িয়ে রয়েছে বেদ, গীতা ও যোগাসনের সম্পর্ক। আমাদের সেসবের ধারক ও বাহক হয়ে উঠতে হবে। তিনি সামাজিক মাধ্যমে প্রশ্ন তুলে দেন, আমরা কি এই দাসত্বের নাম ইন্ডিয়াকে বদলে দিয়ে ভারত করে নিতে পারি না?

তিনি বলেন, ইন্দাস ভ্যালি তথা সিন্ধু উপত্যকা থেকেই ইন্ডিয়া নামকরণ। তবে শুধুমাত্র জন্মের হিসাবে কারও নাম রাখা যায় না। সেখানে দাঁড়িয়ে ভারত নামের মধ্যে আলাদা অর্থ রয়েছে। কঙ্কনা বিশ্লেষণ করে বলেন, ‘ভা’ অর্থ ভাব, ‘র’ অর্থ রাগ এবং ‘ত’ অর্থ তাল। তবে কঙ্কন্নার এই বক্তব্যের পক্ষে ও বিপক্ষে জনমতও তৈরি হয়েছে।

তবে কে কি বললেন তা নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত নন এই অভিনেত্রী। কারণ, বরাবরই তিনি বিতর্কিত মন্তব্যে আলোচনা ও সমালোচনার মধ্যমণি হয়েছেন। একটা সময়ে কঙ্কনার বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলও বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্ত তারপরেও থামিয়ে রাখা যায়নি এই বলিউড অভিনেত্রীকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *