তিন মাসের শিশুকে পুকুরে ফেলল কে?

বাংলাদেশ

ভোলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের পাঙ্গাসিয়া এলাকায় মারিয়া নামের তিন মাসের এক শিশুকন্যাকে ডাকাতি করতে এসে পুকুরে ফেলে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি রহস্যজনক হওয়ায় শিশুটির বাবা ও মাকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে পুলিশ ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের পাঙ্গাসিয়া গ্রাম থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে।

বিষয়টি রহস্যজনক মনে হওয়ায় ওই শিশুর বাবা মঞ্জুর আলম ও মা শাহনাজ বেগমকে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে রাখা হয়েছে।

পশ্চিম ইলিশা ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. সেলিম হাওলাদার জানান, সকালের দিকে তারা খবর পেয়ে মঞ্জুর আলমের বাড়িতে যান। মঞ্জুর স্ত্রী শাহনাজ বেগম তাদের জানান, স্বামী সন্তানসহ তিনি রাতে ঘুমিয়ে পড়লে রাত আড়াইটার দিকে ৪ জন ডাকাত মুখোশ পরে তাদের ঘরে প্রবেশ করে।

ওই সময় শাহনাজ বেগমের হাত, পা ও মুখ বেঁধে রাখে ডাকাতরা। এ সময় তার শিশুসন্তান উঠে কান্না করলে ডাকাতরা তাকে ঘরের দরজা খুলে পাশের পুকুরে ফেলে দেয়। পরে ডাকাতরা ঘরে থাকা নগদ ১৩০০ টাকা ও প্রায় এক ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে তার ডাক-চিৎকারে স্বামীর ঘুম ভাঙলে সব খুলে বলে। পুকুর থেকে তার শিশুসন্তানের লাশ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। তবে ডাকাতদের চিনতে পারেনি বলে দাবি করেন শাহনাজ বেগম।

বিষয়টি শুনে ইউপি চেয়ারম্যান পুলিশে খবর দেন। বিষয়টি স্থানীয়দের কাছে রহস্যজনক মনে হয়েছে। তাদের ঘরে ডাকাত আসবে কী নিতে বলেও জানান তারা।

ভোলা মডেল থানার ওসি মো. এনায়েত হোসেন ও ইলিশা তদন্ত কেন্দ্রের আইসি আনিসুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে ঘটনাটির প্রকৃত রহস্য বের করতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটি বাবা মঞ্জুর আলম ও মা শাহনাজ বেগমকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *