অটোরিকশার চার্জার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৫ জন দগ্ধ

বাংলাদেশ

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর আহসানবাগ এলাকার একটি বাসায় অটোরিকশার চার্জার থেকে বিস্ফোরণে একই পরিবারের পাঁচ জন দগ্ধ হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার (৯ জুলাই) ভোর ৪টার দিকে সিলেটিবাজার কাজী গলির একটি দোতলা বাড়ির নিচতলা ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।  

দগ্ধরা হলেন- ইজি বাইক চালক আ. মতিন (৪০), তার স্ত্রী ইসয়াসমিন আক্তার ময়না (৩৫), দুই মেয়ে আয়শা (৬) ও মায়শা (১০) এবং ময়নার ভাগিনা আবুল খায়ের রায়হান (২৫)।

দগ্ধ রায়হান জানান, তিনি একটি প্রতিষ্ঠানে জুনিয়র ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে চাকরি করেন। ওই বাসায় তার মা থাকলেও তিনি অন্যখানে থাকেন। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) দিনগত রাতে তিনি ওই বাসায় মায়ের কাছে গিয়েছিলেন। রাতে মতিনের পরিবারে একটি রুমে ও পাশের রুমে ছিলেন তিনি। শুক্রবার ভোরে যখন তারা সবাই ঘুমিয়েছিলেন, তখন বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। মুহূর্তেই ঘুম ভেঙে গেলে চারদিকে আগুন দেখতে পান তিনি। বিস্ফোরণে রুমের দরজাও ভেঙে গেছে। পরে তারা দৌঁড়ে বাসার বাইরে চলে যান। তবে এরআগেই তাদের শরীর পুড়ে যায়।

তিনি বলেন, মতিন প্রতিদিন বাসাতেই অটোরিকশা চার্জ করতেন। অটোরিকশাটি বাসার বাইরে রেখে তার চার্জার রুমের ভেতরে বিদ্যুতের সঙ্গে সংযোগ করতেন। সেই চার্জার থেকেই ভোরে বিস্ফোরণে ঘটে।  

তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া মতিনের শ্যালক মো. মাসুম জানান, খবর পেয়ে ভোরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রায়হান ছাড়া বাকি ৪ জনের অবস্থাই গুরুতর। বড় মেয়েটি একটি মাদরাসায় পড়তো। তাদের বাড়ি কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আনন্দপুর গ্রামে।

বার্ন ইনস্টিটিউটের দায়িত্বরত চিকিৎসক জানান, মতিনের শরীরের ৯২ শতাংশ, ময়নার ৯৫, আয়শার ৪৬, মায়শা ৪২ এবং রায়হানের ১৮ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। রায়হান বাদে বাকি ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ঢাকা মেডিক্যাল পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *