অদম্য স্বপ্নচারী সাব্বির মুন্নার গল্প

বিনোদন

বিনোদন ডেস্কঃ

সাব্বির মুন্না পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার। যিনি একাধারে একজন অভিনেতা, একজন পরিচালক লেখক, সংগীতশিল্পী এবং চিলেকোঠা নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংঘঠনের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও সভাপতি।

নিজের অধ্যবসায় ও মেধায় সাধারণ থেকে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। সাব্বির মুন্না তরুণ প্রজন্মের জন্য আদর্শ, অনুপ্রেরণা।

জন্ম ময়মনসিংহের মুক্তাগাছাতে।তবে তিনি বেড়ে উঠেছেন বরিশালের ঝালকাঠিতে। ছোটবেলা থেকেই অসাধারণ মেধাবী ও দৃঢ় মনোবলের অধিকারী ছিলেন তিনি।

মিউজিকের প্রতি ছোট থেকেই তার ছিলো তীব্র টান। সেই সূত্রেই গুরু রাজিবুর রহমানের কাছে সঙ্গীতসাধনার হাতেখড়ি হয়। দীর্ঘ দশ বছর তার সান্যিধ্যে সঙ্গীত সাধনা করেন তিনি চলমান। সেই সঙ্গে বন্ধুদের সাথে গড়ে তুলেছিলেন ঝালকাঠির জনপ্রিয় ব্যান্ড এনটোনিম।

তার অভিনয়ের হাতেখড়ি মঞ্চনাটক দিয়ে। প্রতীক নাট্যগোষ্ঠীর নামক একটি নাট্য সংগঠনের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবনের শুরু। টানা এগারো বছর থিয়েটার করেছেন তিনি। আত্মনির্ভরশীল হওয়ার অদম্য ইচ্ছা থেকে এসএসসি পরীক্ষার পর থেকেই বাবার সরকারি হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। বর্তমানে একটি কন্সট্রাকশন সাইটের প্ল্যান্ট অপারেটিং ইঞ্জিনিয়ার পদে চাকরিতে কর্মরত রয়েছেন।

এরই মধ্যে বেশ কিছু নাটক ও শর্টফিল্মে অভিনয় করেন তিনি। তার নিজের পরিচালিত নাটকের সংখ্যাও কম নয়। মিউজিকের প্রতি ভালোবাসাটা লালন করে গেছেন চাকরি আর অভিনয়ের পাশাপাশি।

২০২০ সালের করোনা মহামারী যখন প্রকট আকার ধারণ করে, সাব্বির মুন্না প্রতিষ্ঠা করেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন চিলেকোঠা। তিনি “চিলেকোঠা নিউজ” নামে একটি নিউজ পোর্টালের সত্ত্বাধিকারী।

স্বনামধন্য পরিচালক ইমরাউল রাফাতের রচনায় একটি নাটকে ও একুশে টিভির একটি ধারাবাহিকে প্রধান সহকারী পরিচালকের ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে।

সম্প্রতি তিনি তিনটি গানের গাইড ভয়েস দিয়েছেন। নিজের ফেসবুক ওয়ালে সাব্বির মুন্না জানিয়েছেন ইতিমধ্যে গানগুলোর কম্পোজিং চলছে। কেজিএম রাহাতের সঙ্গীতাঙ্গনে খুব শীঘ্রই মুক্তি পাবে গানগুলোর মিউজিক ভিডিও। তার ঘনিষ্ঠ সহচর সাকির লিমুন ও আফরিনের লেখা “মনশহর”, “দীর্ঘশ্বাস”, এবং ” “বয়সন্ধি” শিরোনামের মৌলিক গান তিনটি দর্শকদের ভালো লাগবে বলে আশা করছেন সাব্বির মুন্না। এমনকি গানগুলোর গাইড ভয়েস দেয়ার এক টুকরো ভিডিও নিজের ফেসবুক স্টোরির ওয়ালে ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সাথে শেয়ার করতে দেখা গেছে তাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *